Engineer Simple https://www.engineersimple.com/2022/07/Some%20ways%20to%20increase%20the%20speed%20of%20the%20computer.html

কম্পিউটারের Speed বাড়ানোর কিছু উপায়

নতুন কম্পিউটার কিনেছেন। কিনার সময় যে স্পিড ছিলো তার অর্ধেক স্পিড এখন আর নেই । আপনার কম্পিউটারের  Speed কমে গেছে বা কম্পিউটার স্লো হয়ে গেছে ।

কম্পিউটারের Speed বাড়ানোর কিছু উপায়



প্রোগ্রাম Open হতে দেরি করে, Click  করার কিছুক্ষণ পর ঝিমাতে থাকে, একসাথে অনেক প্রোগ্রাম Open করে কাজ করা যায় না যা আগে করা যেত, অনেক সময় হ্যাং করে ইত্যাদি সমস্যায় ভুগেন প্রায় ব্যবহারকারীরা ।

কম্পিউটারের এমন স্লো কাজ কারো ভালো লাগে না। কাউকে বললে  র‍্যাম বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

 

আসুন কম্পিউটারের  Speed  বাড়ানোর কিছু কাজ করে দেখিঃ-


 কম্পিউটার এর স্পিড বাড়ানোর জন্যে যে কথা টি সর্বপ্রথম আসে তার নাম হলো RAM এবং Processor এবং তার সাথে সামঞ্জপূর্ণ মাদারবোর্ড।

অর্থাৎ RAM বাড়িয়ে এবং Processor আপডেট করে স্পীড বাড়ানো যায়।

RAM হয়তো কিছুটা বাড়ানো যায় কিন্তু Processor বাড়াতে গেলে আসে মাদারবোর্ড এর কথা।

কারণ পুরাতন মাদারবোর্ড নতুন Processor কে সাপোর্ট না করতেও পারে।

তাই পুরাতন মডেলের পিসি যাতে RAM বা Processor আপডেট করার সুযোগ নেই ।

তাই নিচের কাজ গুলো করা এক্সেতে পারে। এতে স্লো কম্পিউটার বা Slow PC কিছুটা হলেও Speed পাবে।

Step 1:


Run এ গিয়ে লেখুন temp তারপর OK দিন, তারপর যা আসবে সব Delete করে দিবেন ।

একইভাবে prefetch, %temp%, recent লিখে Enter দিন এবং সব কিছু Delete করুন।

কম্পিউটারের  Speed বাড়ানো

Search এ গিয়ে লেখুন .* tmp এবং Search দিন। যা পাবেন সব কিছু  Delete করে দিন।

এভাবে *bac, *.bak, *.bck, *.bk!, *.bk$ গুলো দিয়ে Search দিয়ে Delete করুন।

কাজটি Windows এবং New Programme ইনস্টল করার পর সাধারণত একবার করলে হয়।

অবশ্য অনেক সময় উক্ত ফাইল্গুলো গুরুত্বপূর্ণ কাজে লাগে । তবে তা এডভান্স ব্যবহারকারীদের জন্য।

RAM যদি বেশি হয়  তাহলে  এ কাজটি করে তেমন পার্থক্য বুঝা যাবে না।

সব Drive এ Disk Cleanup চালান।

সব Drive-এ  Check Disk চালান।

Defragment চালান প্রতি Drive-এ।

রেজিস্ট্রি ক্লিন করুন সপ্তাহে অন্তত একবার।

CDROM-এ কোন CD/DVD থাকলে বের করে ফেলুন।

Step 2:


Windows এর Automatic Update অপশন Enable থাকলে Disable করে দিন।

কোন ড্রাইভার বা সফটওয়্যারের Automatic Update হচ্ছে কি না Check করে দেখুন।

Automatic Update অপ্সহন Enable থাকলে Disable করে দিন।

বিশেষ করে নেট কানেকশন দেওয়ার পর পিসি স্লো হলে এ অপশন গুলোকে সন্দেহ করতে পারেন।

পিসি যদি Virus, Mal-ware, Spyware ইত্যাদি Malicious Tools বা ক্ষতিকারক টুল দ্বারা আক্রান্ত হয় তাহলে এগুলো পিসি ইউজারের অজান্তে বা গোপনে কাজ করে।

ইউজার যতই সচেতন হোক  তা বুঝতে প[রে না। যতক্ষণ পিসি চালু থাকে এ কাজ চলতে থাকে  এবং এতে পিসি স্লো হয়ে যায়।

তাই পিসিতে  শক্তিশালী Antivirus, Firewall ব্যবহার করতে হবে। এগুলো নিয়মিত Update করতে হবে এবং মাঝে মাঝে পিসি স্ক্যান করে দেখতে হবে

তাই মাঝে মাঝে আপনার পিসি স্ক্যান করে দেখুন। প্রয়োজনে নতুন ভাবে  Windows Setup করুন।

তারপর অন্য কোন সফটওয়্যার ইনস্টল করার আগে নতুন ডাউনলোড করা একটি Antivirus ইনস্টল করুন এবং Antivirus Update করে Full Scan দিন।

তারপর ড্রাইভার সহ অন্যান্য সফটওয়্যার ইনস্টল করুন।

অপ্র্যোজনীয় সফটওয়্যার Uninstall করে ফেলুন।

C Drive বা Windows Drive এ কমপক্ষে অর্ধেক জায়গা খালি রাখুন।

প্রতিটি Drive এ কমপক্ষে ১৫% জায়গা খালি রাখুন। অর্থাৎ কোন Drive এ যেন Data Full হয়ে না যায়।

 

Step 3:  


আপনার Antivirus Automatic Scan বা সিডিউল স্ক্যান হচ্ছে কি না Check করে দেখুন।

যদি এরকম হয় তাহলে সিডিউল স্ক্যান পুরোটা শেষ হতে দিন বা বন্ধ করে দিন।

সিডিউল স্ক্যান একবার পুরোটা হতে না পারলে পিসি চালু হওয়ার সাথে সাথে পুণ্রায় শুরু থেকে হতে পারে। এতে পিসি স্লো হয়ে পড়ে।

সিডিউল স্কান সাধারণত সপ্তাহে একবার হয়।

যদিও বিভিন্ন Antivirus এ বিভিন্ন রকম সেটিং থাকে বা ইউজারেরা  নিজের মতো করে সেটিং করে নেয়।

প্রয়োজনে Antivirus টি UnInstall করে দেখুন।

Motherboard এর Driver গুলো সঠিক ভাবে ইন্সটল না থাকলেও পিসি স্লো হতে পারে।

বিশেষ করে Graphics আর Chip Set Driver। এজন্য Device Manager Check করে দেখুন।

Start Menu থেকে Run এ গিয়ে (Windows+R) এ গিয়ে Msconfig লিখে Enter চাপুন।

ওখান থেকে Non Microsoft Service গুলো বন্ধ করে দিন।

অপরিচিত সার্ভিস পেলে Google এ সার্চ দিয়ে জেনে নিন। তারপর Start-up থেকে অপ্রয়োজনীয় Shortcut গুলো বন্ধ করে দিন।

কম্পিউটারের  Speed বাড়ানো

অনেক সময় ভাইরাস, সফটওয়্যার Install/UnInstall বা অন্যান্য কারণে Windows এর কিছু ফাইল করাপ্ট হয়।

এতে হয়তো স্বাভাবিক কাজকর্ম করা যায় তবে কম্পিউটারের স্পিড কমে যায়। এ জন্য sfc কমান্ড চালান।

কাজ না হলে Windows Repair বা নতুন করে Windows দিন। এতে আপনার কম্পিউটার স্পিড আসবে।

Step 4:


পুরানো পার্টিশন ভেঙে হার্ডডিস্কটিকে নতুন করে পার্টিশন তৈরি করুন। তবে কাজটি করার আগে প্রয়োজনীয় ডাটা বেকআপ নিতে ভুলবেন না

সব শেষে আপনার হার্ডডিস্কে Bad Sector Check করুন এবং প্রয়োজনে হার্ডডিস্ক পরিবর্তন করুন।

এভাবেই আপনি আপনার কম্পিউটারের  Speed বাড়াতে পারেন।

 

অন্যান্য পোস্ট: কম রেটে কথা বলার উপায়, কীবোর্ড শর্টকার্ট।



Share with others

0 Comments

Publish comments by following these Rules.??

অর্ডিনারি আইটি কী?